Bimal Sankar nanda

 

নিশিকান্ত ভূঞ্যাঃ-  পশ্চিমবঙ্গের উচ্চশিক্ষা ধ্বংসকারি SACT নিয়োগ নিয়ে আবার সরব হলেন বিশিষ্ট আইনজীবী মাননীয় দেবজিৎ সরকার এবং বিশিষ্ট অধ্যাপক মাননীয় বিমল শংকর নন্দ মহাশয়। এই মুহূর্তে রাজ্যে কয়েক হাজার যোগ্যতাসম্পন্ন চাকুরিপ্রার্থী থাকা সত্ত্বেও পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার ঠিক কি কারণে রাজ্যের সরকারি এবং সরকার পোষিত কলেজে পড়ানোর ন্যূনতম যোগ্যতা না থাকা প্রার্থীদের SACT নাম দিয়ে কলেজ গুলোতে ৬০ বছর পর্যন্ত পড়ানোর সুযোগ করে দিচ্ছে, তা নিয়ে ২৯/০৮/২০২০ তারিখে একটি বৈদ্যুতিন সংবাদমাধ্যমের সান্ধ্যকালীন বিতর্ক অনুষ্ঠানে আবারও প্রশ্ন তুললেন বিশিষ্ট আইনজীবী মাননীয় দেবজিৎ সরকার মহাশয় ।

Advertisement

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এর পূর্বেও তিনি এই বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তোলেন এবং বলেন SACT নিয়োগের মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার রাজ্যের হাজার হাজার NET, SET উত্তীর্ণ M.Phil, Ph.D করা চাকুরিপ্রার্থীদের প্রতি অন্যায় এবং বঞ্চনা করছে । SACT নিয়োগের মাধ্যমে রাজ্যের বর্তমান শাসকদল মূলত পাইয়ে দেওয়ার রাজনীতি করছে । আলোচনা চলাকালীন আজও তিনি একই প্রশ্ন তোলেন ।

Bimal Sankar nanda

এই অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট অধ্যাপক বিমল শঙ্কর নন্দ মহাশয় বলেন, কলেজে পড়ানোর জন্য UGC নির্ধারিত সুনির্দিষ্ট যোগ্যতামান থাকা প্রয়োজন এবং SACT নিয়োগের ক্ষেত্রে বর্তমান রাজ্য সরকার সেটা না মেনেই যোগ্যতা না থাকা প্রার্থীদের কলেজে পড়ানোর সুযোগ দিচ্ছে । তিনি আরও বলেন পূর্ববর্তী রাজ্য সরকারও ২০১০ সালে একই ভাবে আংশিক সময়ের শিক্ষকদের ৬০ বছর পর্যন্ত স্থায়ীকরণ করে এবং তখনও UGC র নির্ধারিত নিয়মবিধি মানা হয়নি । তবে SACT এর মধ্যে কিছু সংখ্যক প্রার্থীর UGC নির্ধারিত যোগ্যতামান থাকলেও অধিকাংশেরই UGC নির্ধারিত যোগ্যতামান নেই একথাও তিনি উল্লেখ করেন ।

 

সকল খবর সবার আগে ফেসবুকে ফ্রী পেতে চাইলে আমাদের পেজ লাইক করুন। Click Here..

Advertisement

 

উচ্চ শিক্ষার্থী, যোগ্যতাসম্পন্ন চাকুরিপ্রার্থী, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবং রিসার্চ ইনস্টিটিউট এর গবেষকগণ দীর্ঘদিন থেকে রাজ্যের কলেজগুলোতে SACT নিয়োগের বিরোধিতা করছে এবং United Students and Research Scholars Association (USRESA) নামের ফোরাম তৈরি করে তারা কলকাতা উচ্চ আদালতে মামলাও করেছে যা বর্তমানে বিচারাধীন । SACT নিয়োগের প্রসঙ্গে USRESA র সভাপতি তথা বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক জয়দেব পাত্রর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন “বর্তমান রাজ্য সরকার রাজ্যের উচ্চশিক্ষিত এবং যোগ্যতাসম্পন্নদের প্রতি বিমাতৃসুলভ আচরণ করছে । একদিকে সবরকম যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও শুধুমাত্র স্বল্প শূন্যপদের অজুহাত দেখিয়ে কলেজ সার্ভিস কমিশন বা পাবলিক সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষায় হাজার হাজার চাকুরিপ্রার্থীকে ওয়েটিং লিস্টে রেখে দিচ্ছে, ঠিক অন্যদিকে SACT এর নাম দিয়ে রাজ্য সরকার কলেজে পড়ানোর যোগ্যতা না থাকাদের ৬০ বছর পর্যন্ত পড়ানোর সুযোগ করে দিচ্ছে। ” সরকারের এই দ্বিচারিতার তীব্র বিরোধিতা করে তিনি আরও বলেন, “বিচার ব্যবস্থার প্রতি আমাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে, আশাকরি আমরা ন্যায়বিচার পাবো ।”

 

নবান্ন অভিযানের হুমকি ওয়েষ্ট বেঙ্গল রিকগনাইজ্ড আন-এডেড মাদ্রাসা টিচার্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে??? তাদের দাবীতে অনড়???

Leave a Reply

Your email address will not be published.