about teacher appointment

 

নিশিকান্ত ভূঞ্যাঃ- দীর্ঘ প্রায় সাত বছর ধরে আপার প্রাইমারি নিয়োগ প্রক্রিয়া ঝুলে রয়েছে। একদিকে করোনা জনজীবনকে বিপর্যস্ত করে দিয়েছে। অপরদিকে মাননীয়া মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সদিচ্ছার অভাবে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া কলকাতা হাইকোর্টের মামলার জালে জড়িয়ে রয়েছে। লক্ষ লক্ষ বেকার উচ্চশিক্ষিত যুবক যুবতীরা B. Ed. করে বসে আছে। কখন নতুন করে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে সরকার। শিক্ষিত বেকার যুবক যুবতীরা আশায় দিন গুনছে। তাদের ধৈর্যের বাঁধ ভেঙ্গে যাচ্ছে।

goodwill of govt in appointing teachers

Advertisement

একদিকে প্রায় সাত বছর ধরে আপার প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ থমকে থাকার জন্য চাকরিপ্রার্থীদের মনের অবস্থা কোন জায়গায় দাড়িয়েঁছে তা-কি মাননীয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার বুঝতে পারছেন?? প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, কিছুদিন আগে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া থমকে থাকার জন্য চাকরিপ্রার্থীরাই দায়ী । কারণ মামলা করেছেন চাকরিপ্রার্থীরা। এদিকে আপার প্রাইমারি নিয়োগ নিয়ে ভুরি ভুরি অভিযোগ স্কুল সার্ভিস কমিশন এর দপ্তরে জমা পড়েছে। এখানে প্রশ্ন যে শিক্ষক নিয়োগের বিষয়ে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর সরকারের সদিচ্ছা রয়েছে কি ??

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, কিছুদিন আগে স্কুল সার্ভিস কমিশন শীত ঘুম থেকে উঠেছে। কেন একথা বলা হলো?? দীর্ঘ 7 বছর পর কিছুদিন আগে স্কুল সার্ভিস কমিশন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতিকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন যে, অতি দ্রুত শিক্ষক নিয়োগ যাতে হয় তার জন্য মামলাগুলোর দ্রুত নিষ্পত্তি করা হোক।

চাকুরিপ্রার্থী একাংশের দাবি যে, কমিশন এই পদক্ষেপ এতদিন পর নিলেন কেন?? সেই পদক্ষেপ কেন আগে নিলেন না??? দীর্ঘ সাত বছর ঝুলে থাকার পর এই পদক্ষেপ নিলেন । তাহলে কি স্কুল সার্ভিস কমিশনের সদিচ্ছার অভাবে কি এর জন্য মূল দায়ী?? প্রশ্ন উঠছে মাননীয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ার বিষয়ে আগ্রহী নন?? চাকুরী প্রার্থীদের একাংশের অভিযোগ যে, সরকার উচ্চ শিক্ষিত বেকারদের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলছেন। দীর্ঘ 7 বছর ধরে সরকারের সদিচ্ছার অভাব এর জন্যই নিয়োগ হচ্ছে না।

একাংশ চাকরিপ্রার্থীদের দাবি করেন যে, অতি দ্রুত স্বচ্ছভাবে শিক্ষক নিয়োগ না হলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামবেন। তবে মাননীয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 2021 এর বিধানসভার ভোটকে লক্ষ্য রেখে শিক্ষক নিয়োগের ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নেন কিনা তা দেখার বিষয়। শিক্ষিত যুবক যুবতীরা কবে নতুন করে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হবে সেই দিকেই তাকিয়ে আছে। এমতাবস্থায় 2021 এর বিধানসভার নির্বাচনের আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কি এই লক্ষ লক্ষ বেকারের মুখে হাসি ফোটাতে পারবে?? তা সময়ই বলে দেবে। তবে মাননীয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উচ্চশিক্ষিতদের কথা ভেবে কিছু পদক্ষেপ নেবেন এই আশায় দিন গুনছি উচ্চ শিক্ষিত বেকার যুবক যুবতীরা।

 

Advertisement

শিক্ষক নিয়োগ মামলায় চাকুরীপ্রার্থীদের স্বপ্ন ভঙ্গ!!! স্কুল সার্ভিস কমিশনের জয়!!!

Leave a Reply

Your email address will not be published.