BJP Flag

BJP Flag

সাংবিধানিক পদ ছেড়ে রাজনীতির আঙ্গিনায় আসতে চলেছেন কি রাজ্যপাল ? হ্যাঁ ঠিকই শুনেছেন। কার কথা বলা হচ্ছে কিছুটা এবার আন্দাজ করতে পেরেছেন নিশ্চয়। বর্তমান মেঘালয়ের রাজ্যপাল তথাগত রায় রাজ্যপালের দায়িত্ব ছেড়ে সক্রিয় রাজনীতিতে আসতে চাইছেন বলে সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে। এই নিয়ে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির নেতৃত্বের মধ্যে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে। শেষ পর্যন্ত তথাগত রায় সক্রিয় রাজনীতিতে আবার যোগদান করেন কিনা তা দেখার বিষয়। কারন অনেক উদাহরণ আছে যে রাজ্যপাল হওয়ার পর আবার পরবর্তী কালে সক্রিয় ভাবে রাজনীতিতে এসেছেন। তাই বর্তমান মেঘালয়ের রাজ্যপাল তথাগত রায় যদি রাজ্যপাল পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে সক্রিয় ভাবে অংশ গ্রহণ করেন তাতে অবাক হওয়ার কিছু নেই বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহল মনে করেন। সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে যে, তথাগত রায় তার ঘনিষ্ঠ মহলে জানিয়েছেন যে তিনি সক্রিয় ভাবে রাজনীতিতে আসতে চাইছেন।

তথাগত রায়ের এই ইচ্ছেকে স্বাগত জানিয়েছেন বিজেপির জাতীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা। তিনি বলেন ‘ রাজ্যপালের দায়িত্ব ছেড়ে যদি উনি চলেই আসেন তাহলে সক্রিয় রাজনীতি করতে কোনও অসুবিধা নেই। এইরকম উদাহরণ অনেক আছে। উনি পুরনো দিনের বিজেপি কর্মী এবং বিজেপির রাজ্য সভাপতি ছিলেন। আবার সক্রিয় রাজনীতি আসলে দলের লাভই হবে। উনি তো বিজেপির ঘরের লোক।’

Advertisement

Tathagata_Roy

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, তথাগত রায় পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য বিজেপির সভাপতি ছিলেন এক সময়। যখন পশ্চিমবঙ্গে রাজনীতিতে বিজেপির অস্তিত্ব প্রায় ছিল না। তখন তিনি বিজেপির একজন সক্রিয় রাজনীতিবিদ ছিলেন।প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, ২০০২ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিজেপির রাজ্য সভাপতি ছিলেন তথাগত রায়। পরবর্তী কালে তথাগত রায় ২০১৫ সলের ১২ই February তে  ত্রিপুরার রাজ্যপাল হিসাবে দায়িত্ব নিয়ে ছিলেন। পরর্বতী কালে ২০১৮ সালে তথাগত রায় মেঘালয়ের রাজ্যপালের দায়িত্ব নেন। আপাতত তিনি মেঘালয়ের রাজ্যপালের দায়িত্বে আছেন। কিন্তু তিনি তার ঘনিষ্ঠ মহলে জানিয়েছেন তিনি সক্রিয় ভাবে রাজনীতিতে ফিরতে চান। তিনি যদি আবার সক্রিয় রাজনীতিতে যোগদান করেন তাতে করে বিজেপিকে অনেকটা অক্সিজেন যোগাবে বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহল মনে করেন। তবে এক সময় রাজনৈতিক মহলের গুঞ্জন ছড়িয়ে ছিল পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থীও করা হতে পারে।যাইহোক এটা শুধুমাত্র জল্পনা স্তরে থেকে গেছে। যাইহোক তথাগত রায় কি পদক্ষেপ নেন তা সময়ই বলে দেবে।

 

আরও পড়ুন

সোশ্যাল মিডিয়াই কি 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারের একমাত্র পথ ?

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published.