Independence Day Celebration at Kunarpur Anchal

 

নিশিকান্ত ভূঞ্যাঃ- নারায়ণগড় ব্লকের 4 নম্বর কুনারপুর অঞ্চলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন ( Independence Day Celebration at Kunarpur Anchal ) হলো মাননীয় প্রধান রঞ্জিত কুমার সাহু এর উপস্থিতিতে। প্রায় দীর্ঘ 200 বছর ধরে ইংরেজ শাসনের অধীনে থাকার পর 1947 সালের 15 ই আগস্ট ভারত স্বাধীনতা লাভ করে। আজ 15 ই আগস্ট শনিবার করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও সারাদেশ জুড়ে বিভিন্ন স্থানে ভারতীয় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের স্মরণ করছেন দেশবাসী। করোনা পরিস্থিতির জন্য জামায়াত নিষিদ্ধ।তাই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন হচ্ছে।

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার নারায়ণগড় ব্লকের অন্তর্গত 4 নম্বর কুনারপুর অঞ্চলে সকালে 15 আগস্ট স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করা হল। কুনারপুর অঞ্চল প্রধান রঞ্জিত কুমার সাহু এর উপস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, শহীদ বেদীতে মাল্যদান এবং জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন হলো।

Advertisement

এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন 4 নম্বর কুনারপুর অঞ্চলের মাননীয় প্রধান রঞ্জিত কুমার সাহু, উপপ্রধান শুকলাল হাঁসদা সহ অফিসের অন্যান্য কর্মচারীরা। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রত্যেকে মাস্ক পরার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অনুষ্ঠানটি সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়।

স্বাধীনতা দিবসের উপলক্ষে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মাননীয় প্রধান রঞ্জিত রঞ্জিত কুমার বাবু বলেন, 1947 সালের 15 ই আগস্ট আজকের দিনে আমরা ইংরেজদের কাছ থেকে স্বাধীনতা পেয়েছিলাম। এই স্বাধীনতা পাওয়ার জন্য অনেক স্বাধীনতা সংগ্রামীকে আত্ম বলিদান দিতে হয়েছে। তাদের সম্মান, শ্রদ্ধা জানানোর জন্যই আজকের দিনে আমরা দেশজুড়ে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করি। এর পাশাপাশি তিনি করোনা পরিস্থিতিতে সমস্ত দেশবাসীর শুভকামনা করেন এবং সমস্ত দেশবাসী যাতে সুষ্ঠু সুন্দর ভাবে শান্তিতে থাকেন তিনি এই প্রার্থনা করেন।

Independence Day Celebration at Kunarpur Anchal

এই অনুষ্ঠানে উপপ্রধান শুকলাল হাঁসদা বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, ভারতের স্বাধীনতার জন্য যেসব স্বাধীনতা সংগ্রামী আত্ম বলিদান করেছেন তাদের শ্রদ্ধা জানানোর উদ্দেশ্যে অঞ্চলের বিভিন্ন স্কুল গুলোতে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের মূর্তি বানানো হয়েছে এবং ভবিষ্যতেও আরো বিভিন্ন স্কুলে মূর্তি বানানোর কাজ করা হবে। যাতে করে তার মধ্য দিয়ে ছাত্রছাত্রীরা স্বাধীনতা সংগ্রামীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে পারে।এছাড়া উপস্থিত অন্যান্য অফিস কর্মচারীরা শহীদ বেদীতে মাল্য দেওয়ার পাশাপাশি শহীদদের স্মরণ করেন।

Advertisement

 

আরও পড়ুন

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মানবিক রূপ দেখলো রাজ্যবাসী!

Leave a Reply

Your email address will not be published.