Rakshabandhan in present situation

 

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এর ফলে মানুষের জন জীবন কার্যত দিশেহারা। করোনা ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে মানুষ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে গিয়ে আজ তা মানসিক দূরত্বে পৌঁছে গিয়েছে। আজ ৩ ই আগস্ট সোমবার প্রতি বছরের মতো রাখীবন্ধন উৎসব পালন সম্ভব হচ্ছে না। কারন করোনা মানুষের জীবন যাপনকে পাল্টে দিয়েছে। রাখীবন্ধন উৎসব হল ভালোবাসা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অটুট রাখার জন্য পালিত হয়। প্রতি বছর হিন্দু, মুসলিম, শিখ,খ্রিস্টান বিভিন্ন ধর্মের মানুষ একে অপরের হাতে রাখী বেঁধে সম্প্রতির মধ্যে দিয়ে উদযাপন হতো কিন্তু এই বছর করোনা ভাইরাসের প্রকোপে তা আনন্দ নেই।

Advertisement

স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্যে রাখীবন্ধন উৎসব পালন হলো কিন্তু এবার এসব বন্ধ। আজ সোমবার সকাল থেকে চারিদিকে বিষাদের সুর লক্ষ্য করা যাচ্ছে। প্রতি বছর ভাই – বোনেদের যারা রাখী পরান তারাও পরিবহন পরিষেবা বন্ধ হওয়ার জন্য তারা যেতে পাচ্ছেন না।তাই আজ রাখীবন্ধন উৎসব হলেও আনন্দের সুর লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।গত কয়েকদিন ধরে দোকান গুলিতে রাখী বিক্রি প্রায় হয়নি বললে চলে।তাই যেসব দোকানদাররা রাখী বিক্রয় করে কিছু টাকা উপার্জন করে পরিবারের সদস্যদের মুখে হাসি ফোটাতো তাদের পরিবারেও বিষাদের সুর। করোনার প্রভাবে সাধারণ মানুষের রুজরোজগারে টানের ফলে আজকে ভালোবাসা ও সম্প্রতির রাখীবন্ধন উৎসব বিষাদে পরিনত হয়েছে।

নারায়নগড়ের গৃহবধূ সুস্মিতা দেবী বলেন,”প্রতিবছর আজকের দিনে বাপের বাড়ি গিয়ে ভাই ও বোনদের রাখী বেঁধে খুব আনন্দের মধ্যে আজের দিনটি কাটাতাম। কিন্তু আজ করোনা পরিস্থিতিতে তার উপায় নেই।তাই মন খুব খারাপ লাগছে। “শুধু সুস্মিতা দেবী নয় প্রতিটি বাড়িতে আজ বিষাদের সুর লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যাইহোক পরিস্থিতি কারো হাতে থাকে না।তাই পরিস্থিতিকে মানিয়ে চলাই জীবন।

 

Read Previous Post

ফের একবার মমতার সরকার কে টুইটারে আক্রমণ করলেন রাজ্যপাল!

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published.