The salary of the SACT professor was cut off

নিশিকান্ত ভূঞ্যাঃ- UGC এর NET পাস করার সার্টিফিকেট জাল করার অভিযোগ উঠেছিল কালনা কলেজের ভূগোল বিভাগের একজন অতিথি অধ্যাপকের বিরুদ্ধে। এই অভিযোগের ভিত্তিতে এই অতিথি অধ্যাপক অনিমেষ গোস্বামীর বেতন আটকে রাখার সিদ্ধান্ত নিল কালনা কলেজে। তবে এই অতিথি অধ্যাপক ক্লাস নিতে পারবেন বলে জানা যায়।

এই কলেজের অধ্যক্ষ তাপস সামন্ত বলেন, যদি অভিযোগ প্রমানিত হয় তাহলে এই অতিথি অধ্যাপকের উপযুক্ত শাস্তি হবে। তবে আপাতত এই SACT অন্তর্ভুক্ত অতিথি অধ্যাপকের বেতন বন্ধ থাকছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, কিছু দিন পূর্বে অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ীকরন করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই অতিথি অধ্যাপকের মধ্যে অনেকেই অযোগ্য। যা রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দপ্তর নিজেই বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়েছে। এছাড়া অতিথি অধ্যাপকদের নিয়োগ যে সঠিক পদ্ধতিতে হয়নি তাও রাজ্যে উচ্চ শিক্ষা দপ্তর বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়েছে।

Advertisement

তাসত্বেও ভোটের রাজনীতি ও দলদাস অধ্যাপক তৈরির উদ্দেশ্যে অনৈতিকভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অতিথি শিক্ষকদের স্থায়ীকরণ করেছেন। অতিথি অধ্যাপক বা SACT রা যে অযোগ্য তাঁরা বারবার তাদের অনৈতিক কাজকর্মের মধ্য দিয়ে প্রমাণিত করেছেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে এক অতিথি অধ্যাপক গুণীজনকে সোশ্যাল মিডিয়ায় কটুক্তি করেছিলেন। আবার কোন সময়ে এই অযোগ্য SACT দের বিরুদ্ধে পরীক্ষায় অধিক নম্বর পাইয়ে দেওয়ার নাম করে টাকা আদায় করার অভিযোগও রয়েছে। তাই মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর হাতে গড়া এই দলদাস অতিথি অধ্যাপকরা যে অযোগ্য তাঁরা নিজেরাই বারবার প্রমাণিত করেছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে এই অনৈতিক SACT নিয়োগের বিরুদ্ধে USRESA নামক সংগঠন কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছে।

SACT নিয়োগের প্রসঙ্গে USRESA র সভাপতি তথা বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক জয়দেব পাত্রর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন “বর্তমান রাজ্যসরকার রাজ্যের উচ্চশিক্ষিত এবং যোগ্যতাসম্পন্নদের প্রতি বিমাতৃসুলভ আচরণ করছে । একদিকে সবরকম যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও শুধুমাত্র স্বল্প শূন্যপদের অজুহাত দেখিয়ে কলেজ সার্ভিস কমিশন বা পাবলিক সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষায় হাজার হাজার চাকুরিপ্রার্থীকে ওয়েটিং লিস্টে রেখে দিচ্ছে, ঠিক অন্যদিকে SACT এর নাম দিয়ে রাজ্যসরকার কলেজে পড়ানোর যোগ্যতা না থাকাদের ৬০ বছর পর্যন্ত পড়ানোর সুযোগ করে দিচ্ছে |” সরকারের এই দ্বিচারিতার তীব্র বিরোধিতা করে তিনি আরও বলেন, “বিচার ব্যবস্থার প্রতি আমাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে, আশাকরি আমরা ন্যায়বিচার পাবো ।”

সকল খবর সবার আগে ফেসবুকে ফ্রী পেতে চাইলে আমাদের পেজ লাইক করুন। Click Here..

Advertisement

কালনা কলেজের SACT অধ্যাপকের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্তের দাবি ? তাহলে কি অযোগ্য অতিথি অধ্যাপকরা উচ্চশিক্ষার কান্ডারী?

Leave a Reply

Your email address will not be published.