আপার প্রাইমারিতে সুসংবাদ

Kolkata High Court

আপার প্রাইমারিতে সুসংবাদ আসতে চলেছে? স্কুল সার্ভিস কমিশনের গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ ! – The good news is going to come in the upper primary? Important steps of the School Service Commission!

দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে আপার প্রাইমারিতে (Upper Primary) শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ রয়েছে। আপার প্রাইমারি চাকুরী প্রার্থীদের একাধিক অভিযোগ রয়েছে স্কুল সার্ভিস কমিশনের (School Service Commission) বিরুদ্ধে। এই নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে একাধিক মামলা রয়েছে। স্কুল সার্ভিস কমিশনের বিরুদ্ধে মেরিট লিস্ট সংক্রান্ত একাধিক অভিযোগ রয়েছে আপার প্রাইমারি চাকুরী প্রার্থীদের। যা নিয়ে স্কুল সার্ভিস কমিশনে লিখিত ভাবে অভিযোগ করেছেন আপার প্রাইমারি চাকুরী প্রার্থীরা।

এই মুহুুর্তে মামলার জালে জড়িয়ে থাকার জন্য স্কুল সার্ভিস কমিশন আপার প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ করতে পাচ্ছে না। তাই যাতে দ্রুত আপার প্রাইমারিতে শিক্ষক নিয়োগ করা যায় তার জন্য কলকাতা হাইকোর্টের  যে স্থগিতাদেশ রয়েছে তা প্রত্যাহার করার জন্য স্কুল সার্ভিস কমিশনের পক্ষ থেকে কলকাতা হাইকোর্টে প্রধান বিচারপতিকে চিঠি দেওয়া হলো।

Advertisement

সুত্র মারফত জানা যাচ্ছে যে, মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি টিবি এন রামকৃষ্ণানের সেক্রেটারিকে স্কুল সার্ভিস কমিশনের পক্ষ থেকে চিঠি মারফত আবেদন করা হয়। যাতে করে আপার প্রাইমারি সংক্রান্ত মামলার ফলে শিক্ষক নিয়োগের উপর যে স্থগিতাদেশ রয়েছে তা যাতে তুলে নেওয়া হয়। কারণ এই স্থগিতাদেশ থাকার জন্য আপার প্রাইমারিতে শিক্ষক নিয়োগ করা যাচ্ছে না।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, স্কুল সার্ভিস কমিশনের চিঠি প্রসঙ্গে মামলাকারীদের আইনজীবী ফিরদোস সামীমকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, “রেশিও মেইনটেইন করে স্বচ্ছতার সঙ্গে দ্রুত নিয়োগ করুক স্কুল সার্ভিস কমিশন। আমারা তো সেটাই দীর্ঘ দিন ধরে দাবি করে আসছি। স্কুল সার্ভিস কমিশনের এই ইতিবাচক পদক্ষেপকে আমরা স্বাগত জানাচ্ছি। ”

স্কুল সার্ভিস কমিশনের এই গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ গ্রহণ করার ফলে আপার প্রাইমারি চাকুরীপ্রার্থীরা আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন।তবে দীর্ঘ দিন ধরে আপার প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ যেভাবে পড়ে আছে তাতে করে শিক্ষিত বেকারদের ক্রমশ হতাশা বাড়ছে। তাই স্কুল সার্ভিস কমিশনের এই ব্যাপারে কতটা স্বদিচ্ছা আছে তাতে প্রশ্নচিহ্ন থেকেই যাচ্ছে।

এই নিয়ে আপার প্রাইমারি চাকুরিপ্রার্থী নিশিকান্ত ভূঞ্যা বলেন, ” স্কুল সার্ভিস কমিশনের এতদিন পর ঘুম ভেঙেছে। তাতে অবশ্যই ভালো দিক। কারণ দীর্ঘদিন ধরে কেবলমাত্র সদিচ্ছার অভাবের জন্যই এতদিন নিয়োগ হয়নি। তাছাড়া বিভিন্ন মামলার জালে জড়িয়ে রয়েছে আপার প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া । আমার প্রশ্ন হল স্কুল সার্ভিস কমিশন এতদিন পর যে পদক্ষেপ নিল, সেটা আগে নেয়নি কেন? আমরা ইতিমধ্যে অনেক আপার প্রাইমারি চাকুরিপ্রার্থী বন্ধুদের হারিয়েছি। তাই স্কুল সার্ভিস কমিশনের পদক্ষেপকে একদিকে যেমন স্বাগত জানাচ্ছি। তেমনি অপরদিকে দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা থেকে বলতে বাধ্য হচ্ছি যে , এটা শেষ পর্যন্ত চিঠির লেখার মধ্যে থেকে যাবে না তো ? আমরা মনেপ্রাণে চাইছি অতি দ্রুততার সহিত স্বচ্ছভাবে স্কুল সার্ভিস কমিশন আপার প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া সুসম্পন্ন করুক। আমাদের মত শিক্ষিত যুবকদের জীবন নিয়ে ছেলে খেলা বন্ধ হোক। যেহেতু এখন আপার প্রাইমারি নিয়োগ মামলা কলকাতা হাইকোর্টের রয়েছে। তাই ভারতীয় বিচারব্যবস্থার উপর সম্পূর্ণ আস্থা রয়েছে। ”

 

Advertisement

আরও পড়ুন

আপার প্রাইমারি চাকুরির প্রার্থীদের আমরণ অনশনের হুমকি ? কাঁপতে চলেছে কলকাতার রাজপথ ?

Leave a Reply

Your email address will not be published.